মদিনায় মায়ের সামনে শিয়া শিশুকে ভাঙা কাঁচ দিয়ে গলা কেটে হত্যা করেছে সুন্নি ট্যাক্সিচালক

সৌদি আরবের পবিত্র মদিনায় মহানবী হজরত মুহম্মদ (সা.)-এর রওজা মোবারক জিয়ারতে গিয়ে নির্মমভাবে নিহত হয়েছে শিয়া সম্প্রদায়ের ছয় বছরের শিশু জাকারিয়া জাবের।

তার মায়ের মুখে দরুদ শরিফ শোনার পর গাড়ির কাচ ভেঙে তা দিয়ে মায়ের সামনেই শিশুটিকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে এক ট্যাক্সিচালক।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে বলা হচ্ছে, মাজহাবগত বিদ্বেষের কারণেই এ পরিণতি হয়েছে শিশুটির।

এরই মধ্যে শিশুটির জানাজা সম্পন্ন হয়েছে। তবে শিশুটি বেহেস্ত যাবেন নাকি দোজখে যাবেন সে বিষয়ে কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি, তবে শিশুটি হত্যা করলে বেহেস্তে যাওয়া যাবে এরকম বিশ্বাস থেকেই শিয়া সম্প্রদায়ের এই শিশুটিকে মায়ের সামনে বর্বরভাবে হত্যা করেছেন সুন্নি ট্যাক্সিচালক। 

খবর: আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম।

মায়ের সঙ্গে শিশুটি নবী মুহম্মদের রওজায় যাবার জন্যে ট্যাক্সিতে ওঠার পরে মায়ের মুখে দরুদ শোনার পর ট্যাক্সিচালক তাকে জিজ্ঞেস করে- তিনি শিয়া সম্প্রদায়ের কিনা? উত্তরে ওই নারী বলেন- জি। এ সময় ট্যাক্সি থামিয়ে চালক নিচে নেমে আসে। এরপর ট্যাক্সির ভেতর থেকে শিশুকে নামিয়ে ট্যাক্সির কাঁচ ভেঙে তা দিয়ে মায়ের সামনেই শিশুটিকে গলা কেটে হত্যা করেন। মা এই দৃশ্য দেখে সেখানেই জ্ঞান হারান।

জাবের আল জাওয়াব হত্যাকাণ্ড

ছবি: আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম থেকে সংগৃহীত।


শিয়া ইসলাম: শিয়া ইসলাম  ইসলামের দ্বিতীয় বৃহত্তম সম্প্রদায়। শিয়া ইসলাম অনুসরণকারীদের শিইতি বা শিয়া বলা হয়। “শিয়া” হল ঐতিহাসিক বাক্য “শিয়াতু আলি” এর সংক্ষিপ্ত রূপ, যার অর্থ “আলি অনুগামীরা” বা “আলির দল”।

সুন্নি মুসলিম: সুন্নি মুসলিমরা ইসলাম অনুসারীদের মধ্যে সবচেয়ে বড় সম্প্রদায়। সুন্নিরা আরো পরিচিত আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’য়াত, সংক্ষেপে আহল আস-সুন্নাহ নামে। সুন্নি শব্দের উৎপত্তি সুন্নাহ শব্দ থেকে যা দ্বারা ইস্লামের নবি মুহাম্মদের বাণী ও কর্মকে বুঝায়। নবি মুহাম্মদের জীবিত অবস্থায় সুন্নি বা শিয়া বা অন্য কোনো নামে কোনো সম্প্রদায় ছিল না। সুন্নিরা ইসলামের সেই অংশের প্রতিনিধিত্ব করে যারা নবি মুহাম্মদের মৃত্যুর পর সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে নির্বাচিত খলিফা আবু বকরকে মেনে নিয়েছিল।

সূত্র: উইকিপিডিয়া

You may also like...