ঢাবি ভর্তি পরীক্ষা : বাংলা প্রশ্নোত্তর (খ ইউনিট) ২০১৬-২০১৭

ভতি পরীক্ষার প্রশ্নগুলোর মধ্যে এক ধরনের ধারাবাহিকতা লক্ষ্য করা যায়। এদিক থেকে ভর্তি পরীক্ষার বিগত বছরের প্রশ্নগুলো খুব গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে বাংলা এবং ইংরেজি প্রশ্নের ক্ষেত্রে একই ধরনের প্রশ্ন পরীক্ষায় আসার প্রবণতা রয়েছে। বিগত বছরের প্রশ্ন ভালো করে বিশ্লেষণ করে পড়লে ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি অনেকখানি হয়ে যায়। 


১.    ‘দুর্বধ্য’ শব্দের অর্থ-
♠. বধ করা সহজ নয়     b. বোঝা সহজ নয়
c. বাধ্য করা সহজ নয়     d. বোকা
 ব্যাখ্যা : এখানে ‘দুর্বধ্য’ শব্দের অর্থ বধ করা সহজ নয়। এরূপ দুর্বোধ/দুর্বোধ্য বুঝতে পারা কঠিন এমন/ বোঝা সহজ নয়, দুর্বুদ্ধি বোকা/মূর্খতা/ বোকামি এবং দুর্বাধ্য- বাধ্য করা সহজ নয় এমন।

২.    ‘জ্যেষ্ঠের অবিবাহিত অবস্থায় কনিষ্ঠের বিয়েকে’ এক শব্দে কী বলে?
a. অগ্রবিয়ে     ♠. পরিবেদন    c. পরদানি     d. অগ্রদানি
 ব্যাখ্যা : এরূপ আরো কিছু বাক্য সংকোচন হলো অবিবাহিতা জ্যেষ্ঠা থাকার পরও যে কনিষ্ঠার বিয়ে হয়অগ্রোদিধিষু, যে (পুরুষ) প্রথম স্ত্রী জীবিত থাকতে দ্বিতীয় দার পরিগ্রহ করেছে অধিবেত্তা ইত্যাদি।

৩.    ‘রুগ্ণ’ বিশেষণের বিশেষ্য রূপ
a. রোগী     b. রোগিনী     c. রোগাটে     ♠. রোগ
    ব্যাখ্যা : এখানে ‘রুগণ’ শব্দটি বিশেষণ তার সঠিক বিশেষ্য রূপ রোগ। এরূপ রোগী বিশেষণ, রোগিনী বিশেষ্য/বিশেষণ এবং রোগাটে বিশেষণ পদ। যেহেতু ‘রোগিণী’ শব্দটি ‘রোগ’ মূল শব্দ থেকে উদ্ভূত এবং বিশেষ্য/বিশেষণ উভয় পদ হিসেবে ব্যবহৃত হয়। তাই অপশন (ফ) এ ‘রোগ’ শব্দটি শুধু বিশেষ্য রূপ হওয়ায় সঠিক উত্তর হয়েছে।

৪.    ‘ঘর্ষণ বা পেষণজাত সুগন্ধ’ অর্থে কোন শব্দটিকে বোঝায়?     
♠. পরিমল     b. স্নিগ্ধ    c. বিধুর     d. সুবাসিত
    ব্যাখ্যা : প্রদত্ত প্রশ্নোত্তরে ‘পরিমল’ শব্দের অর্থ ঘর্ষণ বা পেষণজাত সুগন্ধ। এরূপ‘স্নিগ্ধ’ অর্থস্নেহপূর্ণ/ মোলায়েম/ মায়াজড়িত/ শীতল/ মধুর/ সুখদায়ক ইত্যাদি।
আর ‘সুবাসিত’ অর্থসুরভিত/সুগন্ধযুক্ত/খুশবুযুক্ত ইত্যাদি এবং ‘বিধুর’ অর্থ হলো-কাতর/দুঃখিত/কীষ্ট/বিকল/ভারাক্রান্ত/ ভীত ইত্যাদি।

৫.    ‘হিন্দি’ শব্দটি মূলত কোন ভাষা থেকে গৃহীত?
♠. ফারসি     b. সংস্কৃত     c. হিন্দি     d. প্রাকৃত
    ব্যাখ্যা : গুরুত্বপূর্ণ ফারসি শব্দ: খোদা, গুনাহ, দোযখ, নামায, পয়গাম্বর, ফেরেশতা, বেহেশত, রোযা, কারখানা, চশমা, জবানবন্দি, তারিখ, তোশক, দফতর, দরবার, দোকান, দস্তখত, দৌলত, নালিশ, বাদশাহ, বান্দা, বেগম, মেথর, রসদ আদমি, আমদানি, জানোয়ার, জিন্দা, নমুনা, বদমাস, রফতানি, হাঙ্গামা ।

৬.    ‘জেন্দা’ কী?     
♠. ভাষা     b. জাতি    c. গ্রন্থ     d. গোষ্ঠী
 ব্যাখ্যা : সাম্যবাদী নজরুল ইসলামের একটি কাব্যগ্রন্থ। উক্ত কাব্যগ্রন্থে মোট ১১ টি কবিতা রয়েছে। ‘সাম্যবাদী’ নামে একটি কবিতা রয়েছে। সাম্যবাদী কবিতায় ‘জেন্দাবেস্তা’ শব্দটি রয়েছে।

সাম্যবাদী —কাজী নজরুল ইসলাম

গাহি সাম্যের গান-
যেখানে আসিয়া এক হয়ে গেছে সব বাধা-ব্যবধান
যেখানে মিশছে হিন্দু-বৌদ্ধ-মুসলিম-ক্রীশ্চান।
গাহি সাম্যের গান!
কে তুমি?- পার্সী? জৈন? ইহুদি? সাঁওতাল, ভীল, গারো?
কনফুসিয়াস? চার্বআখ চেলা? ব’লে যাও, বলো আরো!
বন্ধু, যা-খুশি হও,
পেটে পিঠে কাঁধে মগজে যা-খুশি পুঁথি ও কেতাব বও,
কোরান-পুরাণ-বেদ-বেদান্ত-বাইবেল-ত্রিপিটক-
জেন্দাবেস্তা-গ্রন্থসাহেব প’ড়ে যাও, যত সখ-
কিন্তু, কেন এ পণ্ডশ্রম, মগজে হানিছ শূল?
দোকানে কেন এ দর কষাকষি? পথে ফুটে তাজা ফুল!
তোমাতে রয়েছে সকল কেতাব সকল কালের জ্ঞান,
সকল শাস্ত্র খুঁজে পাবে সখা, খুলে দেখ নিজ প্রাণ!
তোমাতে রয়েছে সকল ধর্ম, সকল যুগাবতার,
তোমার হৃদয় বিশ্ব-দেউল সকল দেবতার।
কেন খুঁজে ফের’ দেবতা ঠাকুর মৃত পুঁথি-কঙ্কালে?
হাসিছেন তিনি অমৃত-হিয়ার নিভৃত অন্তরালে!
বন্ধু, বলিনি ঝুট,
এইখানে এসে লুটাইয়া পড়ে সকল রাজমুকুট।
এই হৃদয়ই সে নীলাচল, কাশী, মথুরা, বৃন্দাবন,
বুদ্ধ-গয়া এ, জেরুসজালেম এ, মদিনা, কাবা-ভবন,
মসজিদ এই, মন্দির এই, গির্জা এই হৃদয়,
এইখানে ব’সে ঈসা মূসা পেল সত্যের পরিচয়।
এই রণ-ভূমে বাঁশীর কিশোর গাহিলেন মহা-গীতা,
এই মাঠে হ’ল মেষের রাখাল নবীরা খোদার মিতা।
এই হৃদয়ের ধ্যান-গুহা-মাঝে বসিয়া শাক্যমুনি
ত্যজিল রাজ্য মানবের মহা-বেদনার ডাক শুনি’।
এই কন্দরে আরব-দুলাল শুনিতেন আহ্বান,
এইখানে বসি’ গাহিলেন তিনি কোরানের সাম-গান!
মিথ্যা শুনিনি ভাই,
এই হৃদয়ের চেয়ে বড় কোনো মন্দির-কাবা নাই।

৭.    ‘টঙ্কার’ শব্দের সম্প্রসারিত বাক্য কোনটি?
a. ট্যাংকের শব্দ     b. ধাতব টাকার শব্দ
♠. ধনুকের ছিলার শব্দ     d. ধনুষ্টংকার রোগীর গোঙানির শব্দ
    ব্যাখ্যা : টঙ্কা এবং টঙ্কার আলাদা শব্দ। টঙ্কা (বিশেষ্য পদ) অর্থ টাকা। টঙ্কার (বিশেষ্য পদ) অর্থ শব্দ বা আওয়াজ (ধনুকের ছিলার শব্দ) । ধাতব টাকার শব্দ- টঙ্কা।

৮.    ‘সাত ভায়া’ গ্রামের উল্লেখ রয়েছে কোন রচনায়?     
a. আমি কিংবদন্তির কথা বলছি
b. নূরলদীনের কথা মনে পড়ে যায়
♠. চাষার দুুঃখ     d. আহ্বান
    ব্যাখ্যা : ‘চাষার দুক্ষু’ রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেন লিখিত একটি ছোট গল্প। গল্পটিতে ‘সাত ভায়া’ গ্রামের নাম উল্লেখ আছে।

৯.   ‘beauty sleep’ বলতে বোঝায়-
a. গভীর ঘুম     ♠. প্রথম রাত্রির ঘুম
c. সুন্দর ঘুম    d. দুপুর বেলায় ঘুম
    ব্যাখ্যা : অনেক রাত অবদি যে জেগে থাকে তাকে ঘরমযঃ ড়ষি বলে।

১০.    ণ-ত্ব বিধি অনুসারে কোন জোড়া অশুদ্ধ বানান?   
a. দুর্নিবার, নবারুণ     b. হরিণ, মূল্যায়ন
♠. কেরাণি, পরগণা     d. পণ, প্রণয়ন
 ব্যাখ্যা : ‘পরগণা’ শব্দটি ফারসি ভাষা থেকে আগত। যার অর্থ হলো-অনেকগুল্ েগ্রামের সমষ্টি/জেলার অংশবিশেষ/ চাকলা। এখানে ‘ কেরানি’ শব্দটি হলো পর্তুগিজ ভাষার শব্দ। ‘ণ-ত্ব’ বিধি অনুসারে শুধু তৎসম (সংস্কৃত) শব্দে ‘ণ’ বসে। যেমন : হরিণ, পণ, প্রণয়ন, নবারুণ ইত্যাদি। সব বিদেশি/দেশি/অর্ধ- তৎসম/তদ্ভব/সমাস নিষ্পন্ন শব্দে ‘ণ’ না হয়ে ‘ন’ হবে। তাই ‘কেরাণি ও পরগণা’ শব্দদ্বয়ে ‘ণ’ প্রয়োগ অশুদ্ধ হয়েছে। এদের শুদ্ধরূপ হলো- কেরানি ও পরগনা। অপরদিকে ‘দুর্নিবার’ শব্দটি সমাসনিষ্পন্ন হওয়ায় ‘ন’ প্রয়োগ শুদ্ধ হয়েছে।

১১.    ‘সশস্ত্র সুন্দরের অনিবার্য অভ্যুত্থান’এই পঙ্ক্তির শূন্য স্থানে বসবে যে শব্দ:     
a. স্বাধীনতা     b. মুক্তি     ♠. কবিতা     d. সংগীত
    ব্যাখ্যা : আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ’র ‘আমি কিংবদন্তির কথা বলছি’ কবিতাটি দ্রষ্টব্য।

১২.    ‘বন্দুকের গুলি ছোড়া অনুশীলনের জন্য স্থাপিত ল্য’কথাটির সংক্ষিপ্ত রূপ-    
a. চতুরঙ্গ     ♠. চাঁদমারি    c. অধ্যাস     d.নিশানী
    ব্যাখ্যা : এখানে ‘চতুরঙ্গ’ হলো- হাতি, ঘোড়া, রথ ও পদাতি- এই চার অঙ্গযুক্ত সৈন্যদল। আর ‘অধ্যাস’ হলো-সত্তা বা গুণাগুণ আরোপ/এক বস্তুতে অন্য বস্তুর কল্পনা বা জ্ঞান এবং ‘নিশানা’ হলো-ফারসি শব্দ অর্থ-ল্য/উদ্দেশ্য।

১৩.    ‘বহু দেখেছে যে’ এক কথায়-    
♠. ভূয়োদশী    b. দূরদর্শী     c. সমদর্শী     d. দার্শনিক
    ব্যাখ্যা : এরূপ-দূরদর্শী-ভবিষ্যতের ফলাফল অনুধাবন করতে পারে এমন; দার্শনিক-চিন্তাশীল এবং সমদর্শী-ভেদজ্ঞানহীন /তত্ত্বজ্ঞানহীন।

১৪.    ‘ভীল’ কী?     
a. এক প্রকার পোকা   ♠. ভারতীয় আদি জাতিবিশেষ
c. অনুর্বর জমি     d. মহাভারতের একটি চরিত্র
 ব্যাখ্যা : নজরুলের ‘সাম্যবাদী’ কবিতার ‘শব্দার্থ ও টীকা’ অংশ দ্রষ্টব্য।

১৫.    ‘আহ্বান’ গল্পের বুড়িকে কোন গাছের নিচে কবর দেয়া হয়েছে?
a. ডালিম    ♠. তিত্তিরাজ    c. ছাতিম     d. সোঁদাল
    ব্যাখ্যা : ‘ছাতিম’ সাধারণত জন্মে আর্দ্র, কর্দমাক্ত ও জলসিক্ত স্থানে; ‘ডালিম’ গাছের উচ্চতা হয় ৫-৮ ফুট এবং ‘সোঁদাল’ এক রকম বড় গাছ যাতে ছড়ির মতো লম্বা ফল ও হলুদ রঙের ফুল হয়। যেহেতু গল্পে আছে ‘শরতের কটুতিক্ত গন্ধ ওঠা বনঝোপ ও মাকাল-লতা দোলানো একটা প্রাচীন গাছের তলায় বৃদ্ধাকে কবর দেয়া হচ্চে।’ যা প্রদত্ত প্রশ্নোত্তরের বাকি তিনটি অপশনের কোনটিই নয়। সুতরাং সঠিক উত্তর তিত্তিরাজ গাছ।

১৬.    ‘উপকূলের ঊনত্রিশ জন জেলে অতিশয় অত্যাচারিত হয়ে সম্রাটের কাছে প্রতিকার চাইলেন’এই বাক্যে উপসর্গ রয়েছে কয়টি?
♠. ছয়টি     b. পাঁচটি     c. নয়টি     d. তিনটি
 ব্যাখ্যা : এখানে উপসর্গগুলোর বিশ্লিষ্টরূপ হলো- উপ+কূল = উপকূল, উন + ত্রিশ = ঊনত্রিশ, অতি+শয় = অতিশয়, অতি + আচারিত + অত্যাচারিত, সম্ + রাট = সম্রাট এবং প্রতি + কার = প্রতিকার।

১৭.    ‘উদীচী’ শব্দের অর্থ-   
a. পূর্বদিক     ♠. উত্তরদিক    c. উত্তরণ    d. জাগরণ

১৮.    ‘আমার পথ’ প্রবন্ধে কাজী নজরুল ইসলামের পথ-প্রদর্শক কে?
a. রাষ্ট্র     b. মানবধর্ম     c. তারুণ্য    ♠. সত্য
 ব্যাখ্যা : ‘যৌবনের গান’ প্রবন্ধে নজরুল ইসলামের পথ প্রদর্শক ‘তারুণ্য’। ‘আমার পথ’ প্রবন্ধে কাজী নজরুল ইসলামের পথ প্রদর্শক ‘সত্য’।

১৯.     কোনটি সমষ্টিবোধক শব্দ নয়?     
a. নিকর    b. নিচয়     ♠. কূল     d. দাম
    ব্যাখ্যা : বাংলা বহুবচন প্রকাশের জন্য রা, এরা, গুলো, গুলি, দিগ, দের, সব, সকল, সমুদয়, কুল, বৃন্দ, নিচয়, রাজি, রাশি, পাল, দাম, নিকর, মালা, আবলি, প্রভৃতি সমষ্টিবোধক শব্দ ব্যবহৃত হয়। সুতরাং অপশন (প) তে উল্লিখিত ‘কূল’ শব্দে বানানগত ভুল রয়েছে। এর শুদ্ধরূপ হবেকুল।

২০.    ‘মাসি-পিসি’ গল্পে দুই বিধবার চরিত্রে মিল কিসে?     
a. জামাইকে ঠকানোর চিন্তায়
♠. দায়িত্বশীলতা ও মানবিক
c. ব্যবসায়বুদ্ধিতে
d. আঠারো বছর বয়স
 ব্যাখ্যা : ‘মাসি-পিসি’ মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের লেখা একটি ছোটগল্প।
    নিচের স্তবকটি পড়ো এবং নিচের চারটি প্রশ্নের প্রাসঙ্গিক উত্তর দাও (২২-২৫) :
এই পৃথিবীতে এক স্থান আছেসবচেয়ে সুন্দর করুণ: সেখানে সবুজ ডাঙা ভ’রে আছে মধুকূপী ঘাসে অবিরল; সেখানে গাছের নাম: কাঁঠাল, অশ্বত্থ, বট, জারুল, হিজল; সেখানে ভোরের মেঘে নাটার রঙের মতো জাগিছে অরুণ; সেখানে বারুণী থাকে গঙ্গাসাগরের বুকে -সেখানে বরুণ কর্ণফুলী ধলেশ্বরী পদ্মা জলাঙ্গীরে দেয় অবিরল জল; সেখানে শঙ্খচিল পানের বনের মতো হাওয়ায় চঞ্চল, সেখানে লীপেঁচা ধানের গন্ধের মতো অস্ফুট তরুণ; সেইখানে লেবুর শাখা নুয়ে থাকে অন্ধকারে ঘাসের উপর; সুদর্শন উড়ে যায় ঘরে তার অন্ধকার সন্ধ্যার বাতাসে।

২২.    স্তবকটিতে কয়টি গাছের নামের উল্লেখ রয়েছে?     
a. চারটি     b. ছয়টি   ♠. পাঁচটি     d. সাতটি
    ব্যাখ্যা : কাঁঠাল, অশ্বত্থ, বট, জারুল ও হিজল।

২৩.    স্তবকটিতে ব্যবহৃত ড্যাশ, কোলন ও সেমিকোলনের মোট সংখ্যা কত?
a. ১২     b. ১০    c. ৮     ♠. ১১
 ব্যাখ্যা : ড্যাশ/বাক্য সংগতি চি‎হ্ন হলো (); কোলন/ ছেদ চি‎‎হ্ন হলো (:) এবং সেমিকোলন/অর্ধচ্ছেদ চি‎‎হ্ন হলো (;)।

২৪.    গঙ্গাসাগর কী?     
♠. বঙ্গোপসাগর     b. একটি দিঘির নাম
c. ভিন্ন একটি উপসাগর     d. গঙ্গা যেখানে সাগরে মিশেছে
    ব্যাখ্যা : কবি জীবনানন্দ দাশ তার ‘এই পৃথিবীতে এক স্থান আছে’ কবিতায় ‘গঙ্গা’ নদীকে সাগর হিসেবে কল্পনা করে বঙ্গোপসাগরের সাথে তুলনা করেছেন।

২৫.    নিচের কোনটি পতঙ্গের নাম?  
a. মধুকূপী      b. জারুল     ♠. সুদর্শন       d. বারুণী
    ব্যাখ্যা : প্রশ্নে উল্লেখিত ‘মধুকূপী’ হচ্ছে এক প্রকার ঘাস; ‘জারুল’ হচ্ছে এক প্রকার গাছ এবং ‘বারুণী’ হচ্ছে জলের দেবী।


প্রতিদিন দিনে বাংলা রাতে ইংরেজি -এভাবে ধারাবাহিকভাবে ঢাবি প্রশ্নত্তোর ব্যাখ্যাসহ প্রকাশিত হবে।

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
Share on FacebookTweet about this on TwitterShare on Google+Email this to someonePrint this page

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *