বিসিএস দৈনন্দিন বিজ্ঞান, উদ্ভিদ বিজ্ঞান-১

প্রশ্ন: ডিএনএ অণুর দ্বি-হেলিক্স কাঠামোর জনক কে?
উত্তর: ওয়াটসন ও ক্রিক
ব্যাখ্যা: ১৯৫৩ সালে ডিএনএ অণুর গঠনের ৪ জন আবিষ্কারকের মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য হিসাবে সর্বাধিক পরিচিতি লাভ করেন ডঃ ফ্রান্সিস হ্যারি কম্পটন ক্রিক। তিনি, জেমস ডি ওয়াটসন এবং মরিস
উইলকিন্স– নিউক্লিয়িক এসিডের আণবিক গঠন এবং জীবিত বস্তুতে তথ্য স্থানান্তরের ক্ষেত্রে এদের তাৎপর্য সংক্রান্ত আবিষ্কারের জন্য ১৯৬২ সালে শারীরতত্ত্ব অথবা ভেষজবিদ্যা শাখায় নোবেল পুরস্কারে ভূষিত হন।

ডাবল হেলিক্স মডেল

প্রশ্ন: আকৃতি, অবস্থান ও কাজের প্রকৃতিভেদে আবরণী টিস্যু কত ধরনের?
উত্তর:
ব্যাখ্যা: আকৃতি, অবস্থান ও কাজের উপর ভিত্তি করে আবরণী টিস্যু তিন ধরনের। ১। স্কোয়ামাস; ২। কলমনারি; ৩। কলয়ডাল।

প্রশ্ন: কোন ডালের সংগে ল্যাথারাইজম রোগের সম্পর্ক আছে?
উত্তর: খেসারী
ব্যাখ্যা: খেসারি ডালে BOAA নামক এক ধরনের অ্যামাইনো এসিড থাকে। দীর্ঘদিন এ ডাল খেলে এ এসিড মানবদেহে ক্রিয়া করে। যার ফলে ল্যাথারাইজম রোগ হয়। ল্যাথারাইজম একটি পায়ের রোগ।

প্রশ্ন: কোন খাদ্যে প্রোটিন বেশি?
উত্তর: মসুর ডাল
ব্যাখ্যা: প্রতি ১০০ গ্রাম মসুর ডালে প্রোটিনের পরিমাণ ২৫.১ গ্রাম এবং গরুর মাংসে ২২.৬ গ্রাম। [তথ্যসূত্র: জীববিজ্ঞান- নবম ও দশম শ্রেণি; পৃষ্ঠা-৬৪]

প্রশ্ন: সুষম খাদ্যের উপাদান কয়টি?
উত্তর: ৬টি
সুষম খাদ্যে শর্করা, আমিষ ও স্নেহজাতীয় খাদ্যের অনুপাত ৪ : ১ : ১।

প্রশ্ন: Photosynthesis takes place in
উত্তর: Green parts of the plants
Photosynthesis বা সালোকসংশ্লেষণ এমন একটি জৈবিক প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে উদ্ভিদ সূর্যের আলোর শক্তি ব্যবহার করে বাতাসে লভ্য কার্বন ডাইঅক্সাইড এবং ভূমি থেকে আহৃত পানি থেকে শর্করা তৈরি করে এবং এ প্রক্রিয়ায় অক্সিজেন নির্গত হয়। প্রধানত, গাছের পাতা এবং অন্যান্য সবুজ অংশে সালোকসংশ্লেষণ সংঘটিত হয়। উদ্ভিদ ছাড়া কিছু জীবাণু এবং কিছু প্রোটিস্টের মধ্যেও এই প্রক্রিয়া পরিদৃষ্ট হয়।

প্রশ্ন: Who wrote the famous book ‘Origin of Species’?
উত্তর: Charles Darwin 
ব্যাখ্যা:
লেখক চার্লস ডারউইন
দেশ যুক্তরাজ্য
ভাষা ইংরেজি
বিষয় প্রাকৃতিক নির্বাচন, বিবর্তনীয় জীববিজ্ঞান
প্রকাশনার তারিখ ২৪শে নভেম্বর, ১৮৫৯

প্রশ্ন: আদিকোষ কোনটি?
উত্তর: ব্যাকটেরিয়া
ব্যাখ্যা: নিউক্লিয়াসের ধরনের উপর ভিত্তি করে কোষ প্রধানত দুই প্রকার: আদি কোষ এবং প্রকৃত কোষ। আদি কোষ অনেকটা স্বাধীন, কিন্তু প্রকৃত কোষ বহুকোষী জীবের মধ্যে থেকে অন্যের সাথে মিলে কাজ করে।

প্রশ্ন: কোনটি দেহকোষ নয়?
উত্তর: শুক্রাণু
ব্যাখ্যা: দেহগঠনকারী কোষকে দেহকোষ এবং জনন কাজে অংশগ্রহণকারী কোষকে জনন কোষ বলে। পুরুষ জনন কোষকে শুক্রাণু এবং স্ত্রী জননকোষকে ডিম্বাণু বলে।

Sparm

প্রশ্ন: একটি ব্যাকটেরিয়া কতটি কোষ দ্বারা গঠিত?
উত্তর: ১টি
ব্যাখ্যা: ব্যাক্টেরিয়া হলো এক প্রকারের এককোষী অণুজীব। এরা হল প্রোক্যারিয়ট (প্রাক-কেন্দ্রিক) অর্থাৎ এদের কোষে সংগঠিত নিউক্লিয়াস নেই, আছে ঝিল্লিহীন নিউক্লিয়েড, যার মধ্যে রৈখিক ক্রোমোজোম নেই আছে বৃত্তাকার ডিএনএ, ঝিল্লি (মেমব্রেন) ওয়ালা কোন অঙ্গাণু নেই এবং নেই কোন সাইটোকঙ্কাল। মানুষের দেহে কয়েক ট্রিলিয়ন কোষ আছে, তবে ব্যাক্টেরিয়ার সংখ্যা এর থেকে ১০-১০০ গুণ বেশি।
এক গ্রাম মাটিতে ৪০ মিলিয়ন এবং এক মিলিলিটার পানিতে ১ মিলিয়ন ব্যাক্টেরিয়াল কোষ থাকতে পারে।

প্রশ্ন: ছত্রাকের কোষ প্রাচীর কি দিয়ে তৈরি?
উত্তর: কাইটিন
ব্যাখ্যা: ছত্রাক (Fungi) হল এককোষী বা বহুকোষী সুকেন্দ্রিক (Eukaryotic) জীব, যারা সালোকসংশ্লেষনের (Photosynthesis) মাধ্যমে শর্করা (Carbohydrate) তৈরি করতে পারে না এবং যাদের দৃঢ় কোষ প্রাচীর (Rigid cell wall) আছে।

প্রশ্ন: প্লাস্টিড কোথায় থাকে?
উত্তর: সাইটোপ্লাজমে
ব্যাখ্যা: উদ্ভিদের কোষের প্রোটোপ্লাজমে একটি বিশেষ অরগানেল বা অঙ্গানু (organelle)। ব্যাকটেরিয়া, ছত্রাক এবং প্রাণীকোষে সাধারণত প্লাস্টিড পাওয়া যায় না।
প্লাস্টিডের কাজ
খাদ্য প্রস্তুত করা
খাদ্য সঞ্চয় করা
উদ্ভিদ দেহকে বর্ণময় ও আকর্ষণীয় করা
পরাগায়ণে সাহায্য করা
শ্রেণীবিভাগ
প্লাস্টিডের শ্রেণীবিভাগ করা হয় এদের রঙের ভিত্তিতে।
ক্লোরোপ্লাস্ট (Chloroplast): সবুজ রঙের প্লাস্টিডদের বলা হয় ক্লোরোপ্লাস্ট। ক্লোরোপ্লাস্ট এ থাকা সবুজ বর্ণের রাসায়নিক ক্লোরোফিল এর মাধ্যমে উদ্ভিদের কোষ সালোকসংশ্লেষণ করে।
ক্রোমোপ্লাস্ট (Chromoplast): নানা রঙের হতে পারে। ক্রোমোপ্লাস্টের কারণে নানান বর্ণের উদ্ভিদ দেখা যায়।
লিউকোপ্লাস্ট (Leucoplast): এদের কোন রঙ নেই এবং এরা সালোকসংশ্লেষণ করে না।

প্রশ্ন: সবুজ ফল পাকলে রঙিন হয় কেন?
উত্তর: জ্যান্থোফিলের উপস্থিতির কারণে

প্রশ্ন: জীবদেহে কয় প্রকার কোষ বিভাজন ঘটে?
উত্তর: তিন প্রকার
ব্যাখ্যা: দুই ধরনের কোষ বিভাজন রয়েছে- মাইটোসিস এবং মিয়োসিস। মাইটোসিস প্রক্রিয়ায় দেহকোষের বিভাজন হয়, এবং মিয়োসিস প্রক্রিয়ায় জনন কোষের বিভাজন হয়।

প্রশ্ন: অপত্যকোষে ক্রোমোজোম সংখ্যা মাতৃকোষের অর্ধেক হয় কোন কোষ বিভাজনে?
উত্তর: মিয়োসিস
ব্যাখ্যা: মিয়োসিস (meiosis) এক বিশেষ ধরণের কোষ বিভাজন প্রক্রিয়া যাতে মাতৃকোষের নিউক্লিয়াসটি উপর্যুপরি দুবার বিভাজিত হলেও ক্রোমোসোমের বিভাজন ঘটে মাত্র একবার, ফলে অপত্য কোষে ক্রোমোসোমের সংখ্যা অর্ধেক হয়ে যায়।

প্রশ্ন: একাধিক কোষ বিভিন্ন কাজের জন্য মিলিতভাবে তৈরি করে–
উত্তর: কলা
ব্যাখ্যা: কলা (Tissue) হল, উৎপত্তিগতভাবে এক, একই প্রকার অথবা একাধিক ধরণের কিছু কোষ সমষ্টি যারা একই স্থানে অবস্থান করে, একটি সাধারণ কাজে নিয়োজিত থাকে। মূলত ঐ কোষ সমষ্টি এবং তাদের নিঃসৃত আন্তঃকোষীয় পদার্থ বা মাতৃকা বা ধাত্রই কলা।
প্রকারভেদ
কলার গঠনগঠন, সংখ্যা বৈশিষ্ট্য এবং মাতৃকার পরিমাণ, বৈশিষ্ট্য ইত্যাদির উপর ভিত্তি করে কলা প্রধানত চার প্রকার:
আবরণী কলা (Epithelial tissue)
যোজক কলা (connective tissue)
পেশী কলা (Muscular tissue)
স্নাযুকলা (Nervous tissue)

প্রশ্ন: উদ্ভিদের বৃদ্ধি সবচেয়ে বেশি হয়–
উত্তর: মূল ও কাণ্ডের অগ্রভাগে

প্রশ্ন: উদ্ভিদ মাটি থেকে পানি ও খনিজ লবণ পরিবহন করে কোন কলার মাধ্যমে?
উত্তর: জাইলেম
ব্যাখ্যা: উদ্ভিদের সংবহনতন্ত্রের জল-পরিবাহী অংশ। জাইলেম একটি জটিল টিস্যু। এ টিস্যুর মাধ্যমে মাটি থেকে উদ্ভিদ দেহে পানি ও পানিতে দ্রবীভূত খনিজ লবন পরিবাহিত হয়।অন্যদিকে ফ্লোয়েম টিস্যু খাদ্য পরিবহন করে।

প্রশ্ন: স্থায়ী কলার কাজ–
উত্তর: উপরের সবগুলোই
ব্যাখ্যা: যে টিস্যু আর বিভাজিত হয় না, তাকে স্থায়ী ট্যিসু বলে।
স্থায়ী টিস্যু ৩ প্রকার:
১। সরল
২। জটিল
৩। ক্ষরণকারী/ নিঃস্রাবী/ বিশেষ।

প্রশ্ন: স্থায়ী টিস্যুর বৈশিষ্ট্য–
উত্তর: কোষগুলো বিভাজনে অক্ষম
ব্যাখ্যা: ভাজক টিস্যু বিভাজিত হয়ে স্থায়ী টিস্যু গঠন করে। এবং স্থায়ী টিস্যু আর বিভাজিত হয় না।

প্রশ্ন: জেনেটিক্স বা বংশগতির জনক কে?
উত্তর: গ্রেগর জোহান মেন্ডেল
ব্যাখ্যা: গ্রেগর জোহান মেন্ডেল ১৮৬৬ সালে মটরশুঁটি নিয়ে গবেষণাকালে বংশগতির ধারক ও বাহকরূপে যে ফ্যাক্টরের (factor) কথা উল্লেক করেছিলন সেটি আজ ‘জিন’ রূপে পরিচিতি পেয়েছে।

গ্রেগর জোহান মেন্ডেল

প্রশ্ন: বংশগতির দুটি সূত্র দিয়েছেন কোন বিজ্ঞানী?
উত্তর: মেন্ডেল
ব্যাখ্যা: মেন্ডেল বংশগতির দুটি সূত্র প্রবর্তন করেন।

সূত্র দুটি:
পৃথকীকরণ সুত্র অথবা law of segregation:
সংকর জীবে বিপরীত বৈশিষ্টের জীনগুলো মিশ্রিত বা পরিবর্তিত না হয় পাশাপাশি অবস্থান করে এবং জননকোষ সৃষ্টির সময় পরস্পর থেকে পৃথক হয়ে যায়।
স্বাধীন সঞ্চারণ সুত্র অথবা law of independent assortment:
দুই বা ততোধিক জোড়া বিপরীত বৈশিষ্টের জীবের মধ্যে ক্রস ঘটালে প্রথম সংকর পুরুষে শুধু প্রকট বৈশিষ্টগুলোই প্রকাশিত হবে, কিন্তু জনন কোষ উৎপাদন কালে বৈশিষ্ট্যগুলো জোড়া ভেঙ্গে পরস্পর থেকে সতন্ত্র বা স্বাধীনভাবে বিন্যস্ত হয়ে ভিন্ন ভিন্ন জনন কোষে প্রবেশ করে।

প্রশ্ন: টিস্যু কালচার প্রযুক্তির প্রধান উদ্দেশ্য কি?
উত্তর: উদ্ভিদ অঙ্গ থেকে চারা উৎপাদন
ব্যাখ্যা: সাধারণত এক এক বা একাধিক ধরণের এক গুচ্ছ কোষসমষ্টিকে টিস্যু (factor) বা কলা বলা হয়। একটি টিস্যুকে জীবানুমুক্ত পুষ্টিবর্ধক কোনো মিডিয়ামে (nutrient medium) বর্ধিতকরণ প্রক্রিয়াই হলো টিস্যুকালচার। টিস্যুকালচার উদ্ভিদ বিজ্ঞানের একটি নতুন শাখা।

প্রশ্ন: মানুষের লিঙ্গ নির্ধারক ক্রোমোজোমের সংখ্যা–
উত্তর: এক জোড়া
ব্যাখ্যা: মানুষের শরীরে দুই ধরনের কোষ রয়েছে। দেহকোষ ও জননকোষ। ক্রোমোজোমও রয়েছে দুই ধরনের। মানুষের শরীরের ২৩ জোড়া ক্রোমেজোমের মধ্যে এক জোড়া লিঙ্গ নির্ধারক ক্রোমেজোম।

প্রশ্ন: নিচের কোনটি নাইট্রোজেন বেস?
উত্তর: গোয়ানিন
ব্যাখ্যা: নাইট্রোজেন বেসগুলো দুধরনের। যথা- পিউরিন ও পাইরিমিডিন। এডিনিন ও গুয়ানিন।
* ক্রোমোজোমের প্রধান DNA উপাদান, তে পাঁচ কার্বনযুক্ত শর্করা, নাইট্রোজেনঘটিত বেস (এডিনিন, গুয়ানিন, সাইটোসিন ও থাইমিন) ও অজৈব ফসফেট থাকে।

প্রশ্ন: পানিতে কিসমিস ডুবিয়ে রাখলে কিছুক্ষণের মধ্যে ফুলে ওঠে, এটা হয়–
উত্তর: অভিস্রবন প্রক্রিয়ায়
ব্যাখ্যা: অভিস্রবণ বলতে দুটো ভিন্ন ঘনত্বের দ্রবণ একটি অর্ধভেদ্য পর্দা দিয়ে পাশাপাশি আলাদা করে রাখলে পর্দা ভেদ করে কম ঘন দ্রবণ থেকে অধিক ঘন দ্রবণের দিকে দ্রাবক অণু প্রবেশ করার প্রক্রিয়াকে বোঝায়। দুটো দ্রবণের ঘনত্ব সমান না হওয়া পর্যন্ত এই প্রক্রিয়া চলতে থাকে। একে অন্যভাবে বলা যায় কোনো শক্তির প্রয়োগ ছাড়াই তরলের বাস্তবিক চলাচল।

প্রশ্ন: অঙ্কুরোদগমের জন্য দরকার হয়–
উত্তর: তাপ, পানি ও অক্সিজেন
ব্যাখ্যা: সুপ্তবস্থা কাটিয়ে ভ্রুণের বৃদ্ধি হওয়াকে অঙ্কুরোদগম বলে। বীজের অঙ্কুরোদগমের জন্য অত্যাবশ্যকীয় উপাদান পানি-তাপ-বায়ু। ছোলাবীজে মৃৎগত অঙ্কুরোদম হয়। শীমবীজে মৃৎভেদী অঙ্কুরোদগম হয়। তামাক বীজের অঙ্কুরোদগমের জন্য অন্ধকার প্রয়োজন হয়।

প্রশ্ন: নিচের কোনটি একবীজপত্রী?
উত্তর: ভুট্টা
ব্যাখ্যা: একবীজপত্রী উদ্ভিদ (Monocot Plant) একক বীজপত্রধর সপুষ্পক উদ্ভিদ। দ্বিবীজপত্রী উদ্ভিদ (Dicot plant) দুটি বীজপত্রবিশিষ্ট উদ্ভিদ।

প্রশ্ন: কোন উদ্ভিদের মূল, কাণ্ড, পাতা নেই কিন্তু ক্লোরোফিল আছে?
উত্তর: শৈবাল
ব্যাখ্যা: শৈবাল জলজ সুকেন্দ্রিক এককোষী বা বহুকোষী জীব, যারা সালোকসংশ্লেষনের মাধ্যমে শর্করা জাতীয় খাদ্য প্রস্তুত করতে পারে। এদের দেহ মূল, কাণ্ড ও পাতায় বিভক্ত নয়। এরা বাতাসের নাইট্রোজেন গ্যাস সংবন্ধন করতে সক্ষম। এরা সবাত শ্বসন পদ্ধতিতে খাদ্যবস্তুর জারণ ঘটায়।

প্রশ্ন: ‘লেটব্লাইট’ কোন ফসলের রোগ?
উত্তর: আলু
ব্যাখ্যা: রোগের নাম: আলুর মড়ক বা নাবী ধ্বসা (Late blight)
রোগের কারণ: ফাইটপথোরা ইনফেস্ট্যান্স (Phytophthora infestans) নামক ছত্রাক
রোগের নাম: আগাম ধ্বসা (Early blight)
রোগের কারণ: অলটারনারিয়া সোলানী (Alternaria solani) নামক ছত্রাক

প্রশ্ন: ঈস্ট কি?
উত্তর: একটি ছত্রাক
ব্যাখ্যা: ইস্ট (Yeast) একপ্রকার এককোষী ছত্রাক। বেশির ভাগ ইস্ট উচ্চ শ্রেনীর অ্যাসকোমাইসিটিস এর অন্তর্ভূক্ত।

প্রশ্ন: কচুরীপানা পানিতে ভাসে, কারণ এদের–
উত্তর: কাণ্ড ফাঁপা
ব্যাখ্যা: কচুরীপানাসহ সকল ভাসমান জলজ উদ্ভিদের কাণ্ডে বায়ুকুঠুরি থাকে বলে তা পানিতে ভাসতে পারে।

প্রশ্ন: ছায়াবৃক্ষ কোন বাগানের সাথে সম্পর্কযুক্ত?
উত্তর: চা বাগান
ব্যাখ্যা: চা চাষের জন্য প্রত্যক্ষ আলোর প্রয়োজন হয় না। এজন্য চা বাগানে ছায়বৃক্ষ হিসেবে বড় গাছ লাগানো হয়।

প্রশ্ন: মরুভূমিতে জন্মানো উদ্ভিদকে কি বলে?
উত্তর: জেরোফাইট
ব্যাখ্যা: হাইড্রোফাইট হচ্ছে পানিতে জন্মানো উদ্ভিদ। হ্যালোফাইট হচ্ছে লবণাক্ত পানিতে জন্মানো উদ্ভিদ।

প্রশ্ন: পানিতে কিচমিচ ডুবিয়ে রাখলে কিছুক্ষণের মধ্য ফুলে উঠে, এটা হয়–
উত্তর: অভিস্রবণ প্রক্রিয়ায়
ব্যাখ্যা: অভিস্রবণ বলতে দুটো ভিন্ন ঘনত্বের দ্রবণ একটি অর্ধভেদ্য পর্দা দিয়ে পাশাপাশি আলাদা করে রাখলে পর্দা ভেদ করে কম ঘন দ্রবণ থেকে অধিক ঘন দ্রবণের দিকে দ্রাবক অণু প্রবেশ করার প্রক্রিয়াকে বোঝায়। দুটো দ্রবণের ঘনত্ব সমান না হওয়া পর্যন্ত এই প্রক্রিয়া চলতে থাকে। একে অন্যভাবে বলা যায় কোনো শক্তির প্রয়োাগ ছাড়াই তরলের বাস্তবিক চলাচল।

প্রশ্ন: কোনটি একবীজপত্রী উদ্ভিদ নয়?
উত্তর: কাঁঠাল
ব্যাখ্যা: কাঁঠাল একবীজপত্রী উদ্ভিদ নয়, কারণ, কাঠালের বীজে দুটি বীজপত্র রয়েছে। দুটি বীজপত্র আছে কিনা তা সব সময় দেখে বোঝা যায় না, তবে যে সকল বীজ দুটো পাতা নিয়ে অঙ্কুরোদগম হয়, সেগুলো দ্বিবীজপত্রী। কাঁঠালের বীজ অঙ্কুরোদগমের পর দুটো পাতা বের হয়।

প্রশ্ন: ধানের বাদামী রোগ হয়–
উত্তর: ছত্রাক দ্বারা
ব্যাখ্যা: ধানে নিন্মোক্ত রোগুলো হয়ে থাকে:
* ব্যাকটেরিয়াজনিত পাতা পোড়া রোগ (Bacterial Blight)
* পাতার লালচে রেখা রোগ (Bacterial Leaf Streak)
* গুড়িপঁচা রোগ (Foot rot)
* ব্লাস্ট রোগ (Blast)
* খোলপোড়া রোগ (Sheath blight)
* ভূয়াঝুল বা লক্ষীর গু (False smut)
* বাদামীদাগ রোগ (Brown spot)
* সরু বাদামী দাগ রোগ (Narrow brown spot)
* কান্ড পঁচা রোগ (Stem rot)
* খোলপঁচা রোগ (Sheath rot)
* পাতার ফোস্কাপড়া রোগ (Leaf scald)
* টুংরো রোগ (Tungro)
* হলদে বামন (Yellow dwarf)
* উফরা রোগ (Ufra)
* শিকড় গিঁট (Root knot)
* বাকানী বা গোড়াপঁচা রোগ (Bakanae)

প্রশ্ন: কোন উদ্ভিদের জন্য প্রত্যক্ষ আলো বাঞ্চনীয় নয়?
উত্তর: চা
ব্যাখ্যা: চা চাষের জন্য প্রত্যক্ষ আলো বাঞ্চনীয় নয়, এজন্য চা বাগানে চা বৃক্ষ লাগানো হয়।

প্রশ্ন: Flora বলা হয় কোনটিকে?
উত্তর: উদ্ভিদকুলকে
ব্যাখ্যা: Flora is the plant life occurring in a particular region or time, generally the naturally occurring or indigenous—native plant life. The corresponding term for animal life is fauna.

প্রশ্ন: কোনটি মুল?
উত্তর: আদা
ব্যাখ্যা: গোল আলু, শালগম, আদা -রূপান্তরিত কাণ্ড। কচু রূপান্তরিত মূল।

প্রশ্ন: ‘লালপচা’ কোন ফসলের রোগ?
উত্তর: আখ
ব্যাখ্যা: আখের লাল পচা রোগ হয়। এ রোগে আখের ভিতরে লাল লাল দাগ দেখা যায়।

প্রশ্ন: মাশরুম এক ধরনের–
উত্তর: ফাঙ্গাস
ব্যাখ্যা: মাশরুম ছাতা বা এক ধরনের ছত্রাকের নাম মাশরুম, যা বাণিজ্যিক ভিত্তিতে চাষ হয়।

ব্যাঙের ছাতা

প্রশ্ন: মিউকর কি?
উত্তর: একটি ছত্রাক
ব্যাখ্যা: Mucor is a microbial genus of approximately 6 species of moulds commonly found in soil, digestive systems, plant surfaces, and rotten vegetable matter.

প্রশ্ন: উদ্ভিদ বিজ্ঞানের সংজ্ঞায় গোল আলুকে কি বলে?
উত্তর: কাণ্ড
ব্যাখ্যা: গোল আলু Solanaceae গোত্রের একবর্ষজীবি উদ্ভিদ। এর স্ফীত কন্দ উপাদেয় সবজী হিসাবে ব্যবহৃত হয়। বাংলাদেশের প্রায় সবর্ত্রই কম বেশী এর চাষাবাদ হয়। ইংরেজি নাম Potato এবং বৈজ্ঞানিক নাম Solanum tuberosum। আলু কন্দ (tuber) জাতীয় এক প্রকারের সবজি। এর আদি নিবাস দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশে, সেখান থেকে ১৬শ শতকে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে।

প্রশ্ন: মূল নাই কোন উদ্ভিদে?
উত্তর: মূল নেই মস বর্গীয় উদ্ভিদের।
ব্যাখ্যা: উল্লেখ্য, অপুষ্পক উদ্ভিদ তিনভাগে বিভক্ত- থ্যালোফাইটা, ব্রায়োফাইটা, টেরিডোফাইটা। এর মধ্যে থ্যালোফাইটার মূল, কাণ্ড, পাতা কিচ্ছু নেই, এদের গাছের মত একটি আকৃতিও নেই। ব্রায়োফাইটা বা মসের পাতা ও কাণ্ড থাকলেও মূল নেই, মূলের পরিবর্তে রাইজয়েড থাকে। টেরিডোফাইটা বা ফার্নের মূল, কাণ্ড ও পাতা আছে।

প্রশ্ন: প্লাস্টিডবিহীন উদ্ভিদ–
উত্তর: Agaricus
ব্যাখ্যা: প্লাস্টিড: উদ্ভিদের কোষের প্রোটোপ্লাজমে একটি বিশেষ অরগানেল বা অঙ্গানু (organelle)। ব্যাকটেরিয়া, ছত্রাক এবং প্রাণীকোষে সাধারণত প্লাস্টিড পাওয়া যায় না।
প্লাস্টিড’র কাজ:
খাদ্য প্রস্তুত করা
খাদ্য সঞ্চয় করা
উদ্ভিদ দেহকে বর্ণময় ও আকর্ষণীয় করা
পরাগায়ণে সাহায্য করা

প্রশ্ন: কোন উদ্ভিদের কান্ড রূপান্তরিত হয়ে পাতার কাজ করে?
উত্তর: ফণীমনসা
ব্যাখ্যা: পাথরকুচি গাছের পাতার মাধ্যমে পুনরায় চারা উৎপাদন হয়।

প্রশ্ন: সাধারণত ফলের অংশ কয়টি?
উত্তর: ৩টি
ব্যাখ্যা: ফুলের গর্ভাশয় নিশিক্ত, পরিপুষ্ট ও পরিনত হয়ে যে অংশ গঠন করে তাকে ফল বলে। ফলের তিনটি অংশ হচ্ছে- বহিঃত্বক, মধ্যত্বক, অন্তঃত্বক।

ফলের বিভিন্ন অংশ

প্রশ্ন: ইরাটম কি?
উত্তর: উন্নত জাতের ধান
ব্যাখ্যা: আউশ, আমন, বোরো ধানের পাশাপাশি বাংলাদেশে এখন বিভিন্ন সংকর জাতের ধানের চাষাবাদ হয়ে থাকে। যেমন: বি, ব্রি, ইরি বা ইরাটম ইত্যাদি।

প্রশ্ন: শৈবাল কোন জাতীয় উদ্ভিদ?
উত্তর: স্বভোজী
ব্যাখ্যা: ছত্রাক জাতীয় উদ্ভিদ পরভোজী, কারণ, ছত্রাকের দেহে ক্লোরোফিল না থাকায় তারা খাদ্য তৈরি করতে পারে না। শৈবাল স্বভোজী, কারণ, শৈবালের দেহে ক্লোরোফিল থাকায় শৈবাল খাদ্য তৈরি করতে পারে।

প্রশ্ন: কোনটি একবীজপত্রী উদ্ভিদ?
উত্তর: ইক্ষু
ব্যাখ্যা: কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ একবীজপত্রী উদ্ভিদ: তাল, রয়েল পাম, নারিকেল, খেজুরধান, গম, ভুট্টা, জোয়ার, বার্লি, আখ নারিকেল, খেজুর ও কলা।

প্রশ্ন: কোনটি অটোফাইট নয়?
উত্তর: ব্যাঙের ছাতা বা ছত্রাক
ব্যাখ্যা: যে সকল উদ্ভিদ নিজের খাবার নিজে তৈরি করতে পারে তাদের অটোফাইট বলে। ব্যাঙের ছাতা বা ছত্রাক নিজের খাবার তৈরি করতে পারে না, এজন্য ব্যাঙের ছাতা বা ছত্রাক অটোফাইট নয়।

প্রশ্ন: নিরপেক্ষ দিনের ফসল–
উত্তর: আউশ
ব্যাখ্যা: নিরপেক্ষ দিনের উদ্ভিদ: দিনের আলোর সময়সীমার ওপর এ জাতীয় উদ্ভিদের ফুল ধারণ নির্ভর করে না। প্রয়োজনীয় দৈহিক বৃদ্ধি হলেই এদের ফুল ধরে। সূর্যমুখী, শসা ও আউশ ধান সাধারণত নিরপেক্ষ দিনের উদ্ভিদ।

প্রশ্ন: ফার্ন উদ্ভিদের জন্য কোনটি প্রযোজ্য?
উত্তর: মূল, কাণ্ড ও পাতায় বিভক্ত অপুষ্পক উদ্ভিদ
ব্যাখ্যা: ফার্ণ হল টেরিডোফাইট প্রজাতির উদ্ভিদ। এর বৈজ্ঞানিক নাম হল Pteris. Pteris উদ্ভিদে সুস্পষ্ট জনুক্রম বিদ্যমান, কারণ এখানে স্পোরোফাইটিক জনুর সাথে গ্যামিটোফাইটিক জনুর অনুক্রমের মাধ্যমে জীবনচক্র সম্পন্ন হয়। Pteris উদ্ভিদ স্পোরোফাইটিক তথা ডিপ্লয়েড (2n)। এটি হতে উৎপন্ন সোরাস, সোরাসে অবস্থিত স্পোরোঞ্জিয়াম এবং স্পোরোঞ্জিয়ামের ক্যাপসিউলের ভেতরে অবস্থিত স্পোর মাতৃকোষও ডিপ্লয়েড।

১। Pteris উদ্ভিদ শাক হিসেবে খাওয়া হয়।

২। ঘর সাজানোর কাজে ব্যবহার করা হয়

৩। সার হিসেবে ব্যবহার করা যায়।

প্রশ্ন: মহাকাশ গবেষণা খাদ্য ও অক্সিজেন উৎপাদনের উৎস হিসাবে ব্যবহৃত হয়–
উত্তর: ক্লোরোলা উদ্ভিদ
ব্যাখ্যা: Chlorella is a genus of single-cell green algae belonging to the phylum Chlorophyta. It is spherical in shape, about 2 to 10 μm in diameter, and is without flagella. Chlorella contains the green photosynthetic pigments chlorophyll-a and -b in its chloroplast. Through photosynthesis, it multiplies rapidly, requiring only carbon dioxide, water, sunlight, and a small amount of minerals to reproduce.

প্রশ্ন: কোনটি তৈল বীজ নয়?
উত্তর: অড়হর
ব্যাখ্যা: Fabaceae গোত্রের একটি গুল্ম জাতীয় উদ্ভিদ। ডাল উৎপাদক গাছ। এই গাছের আদি নিবাস মধ্য এশিয়া। মধ্য ও পূর্ব আফ্রিকা ভারত, বাংলাদেশে এই ডালের জন্য এই গাছের আবাদ করা হয়। এর কা- পশমের ন্যায় নরম এবং ধূসর বর্ণের। পত্রিকা লম্বা এবং সংখ্যায় ৩টি থাকে। ফুলের বোঁটা ছোটো এবং এর রঙ হলুদ। জুন -জুলাই মাসে এর ফুল ফোটে। এর ফল শুঁটিধর্মী। এই শুঁটি ২-৩ ইঞ্চি লম্বা হয়। প্রতিটি শুঁটিতে ৩-৪টি বীজ থাকে। বীজগুলো গোলাকার এবং শক্ত।
এই ফলই ডাল হিসাবে ভারত এবং বাংলাদেশে ব্যবহৃত হয়। মুখোরোচক চটপটি জাতীয় খাবারে এর ব্যবহার রয়েছে।

প্রশ্ন: রূপান্তরিত মূল কোনটি?
উত্তর: মিষ্টি আলু
ব্যাখ্যা: কচু মূল হলেও রূপান্তরিত মূল নয়। আদা এবং ওলকপি রূপান্তরিত কাণ্ড।

প্রশ্ন: পাউরুটি ফোলানোর জন্য কোন ছত্রাক জাতীয় উদ্ভিদ ব্যবহৃত হয়?
উত্তর: ঈস্ট
ব্যাখ্যা: ইস্ট (Fabaceae) একপ্রকার এককোষী ছত্রাক। বেশির ভাগ ইস্ট উচ্চ শ্রেনীর অ্যাসকোমাইসিটিস এর অন্তর্ভূক্ত।

প্রশ্ন: পাঁচটি গর্ভপত্র রয়েছে কোন ফুলের স্ত্রীস্তবকে?
উত্তর: জবা
ব্যাখ্যা: জবা ফুল একটি আদর্শ ফুল, কারণ, জবা ফুলে ফুলের সবগুলো অংশ বিদ্যমান থাকে।

একটি ফুলের বিভিন্ন অংশ

প্রশ্ন: সবচেয়ে বড় ঘাস–
উত্তর: বাঁশ
ব্যাখ্যা: ঘাস বা তৃণ একটি সাধারণ শব্দ যা একধরণের সপুষ্পক উদ্ভিদকে বোঝায়। বিভিন্ন ধরনের ফসল যেমন ধান, গম, ভুট্টা ইত্যাদি ঘাস বা তৃণ জাতীয় উদ্ভিদ। এমনকি বাঁশও ঘাস গোত্রভুক্ত।

প্রশ্ন: উদ্ভিদের মুখ্য পুষ্টি উপাদান কয়টি?

উত্তর: ১৬টি
ব্যাখ্যা: উদ্ভিদ মাটি ও পরিবেশ থেকে তার স্বাভাবিক বৃদ্ধি, শরীরবৃত্তীয় কাজ ও প্রজননের জন্য যেসব পুষ্টি উপাদান গ্রহণ করে তাই উদ্ভিদ পুষ্টি৷ উদ্ভিদের পুষ্টির উৎস বায়ুমণ্ডল, পানি ও মাটি৷ এর ধরণ দুটি,
ম্যাক্রোউপাদান : ৯টি ৷ যথা: N, K, P, Ca, Mg, C, H, O & S

মাইক্রোউপাদান: ৭টি ৷ যথা: Zn, Mn, Fe, Mo, B, Cu & Cl
এর অভাবজনিত রোগগুলো হলো ক্লোরোসিস, পাতার শীর্ষ ও কিনারা হলুদ রং ধারণ, ডাইব্যাক, পাতা বিবর্ণ হওয়া, কচি পাতায় ক্লোরোসিস, পাতা বিকৃতি হয়।

প্রশ্ন: কোষ আবিষ্কার করেন কে?
উত্তর: রবার্ট হুক
ব্যাখ্যা: ১৬৩৫ খ্রিস্টাব্দের ১৮ জুলাই ইংরেজ প্রাকৃতিক দার্শনিক, স্থপতি, বহুবিদ্যাবিশারদ রবার্ট হুকের জন্ম। যৌগিক অণুবীক্ষণ যন্ত্রের উদ্ভাবক তিনিই। জীবাশ্ম এবং ভূতত্ত্বের পর্যবেক্ষক হিসেবেও তার অবদান স্বীকৃত। পদার্থ বিজ্ঞানে স্থিতিস্থাপকতার সূত্রটি তারই আবিষ্কার।

প্রশ্ন: ইকোলজি (Ecology) এর বিষয়বস্তু হচ্ছে–
উত্তর: প্রাণিজগতের পরিবেশের সঙ্গে অভিযোজনের উপায় নির্দেশ
ব্যাখ্যা: Ecology  is the scientific analysis and study of interactions among organisms and their environment. It is an interdisciplinary field that includes biology and Earth science.

প্রশ্ন: Entomology কি সম্পর্কিত বিদ্যা?
উত্তর: কীট পতঙ্গ
ব্যাখ্যা: Entomology is the scientific study of insects, a branch of zoology.

প্রশ্ন: এনাটমির জনক কে?
উত্তর: ভেসালিয়াস
ব্যাখ্যা: Anatomy is the branch of biology concerned with the study of the structure of organisms and their parts. In some of its facets, anatomy is related to embryology and comparative anatomy, which itself is closely related to evolutionary biology and phylogeny. Human anatomy is one of the basic essential sciences of medicine.

প্রশ্ন: ইবনে সিনা কি ছিলেন?
উত্তর: চিকিৎসক
ব্যাখ্যা: আবু আলী হোসাইন ইবনে সিনা (৯৮০–১০৩৭) মধ্যপ্রাচ্যের অন্যতম সেরা চিকিৎসক, গণিতজ্ঞ, জ্যোতির্বিজ্ঞানী এবং দার্শনিক। তাকে সর্ববিদ্যায় পারদর্শী হিসেবে আখ্যায়িত করা যায়। তাকে একইসাথে ইরান, তুরস্ক, আফগানিস্তান এবং রাশিয়ার বিজ্ঞজনেরা তাদের জাতীয় জ্ঞানবীর হিসেবে দাবী করে। মুসলিম বিশ্বে তার প্রভাব সবচেয়ে বেশী। মধ্যযুগীয় জ্ঞান-বিজ্ঞানের ভিত রচনায় তার অবদান অনস্বীকার্য। তার মূল অবদান ছিল চিকিৎসা শাস্ত্রে। তিনি চিকিৎসা শাস্ত্রের বিশ্বকোষ আল-কানুন ফিত-তীব রচনা করেন যা ঊনবিংশ শতাব্দী পর্যন্তও প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল প্রতিষ্ঠানসমূহে পাঠ ছিল। আরবিতে ইবন সীনাকে আল-শায়খ আল-রাঈস তথা জ্ঞানীকুল শিরোমণি হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়।

প্রশ্ন: Osteology অর্থ?
উত্তর: হাড় বিষয়ক চিকিৎসা বিজ্ঞান
ব্যাখ্যা: Osteology is the scientific study of bones, practiced by osteologists. A subdiscipline of anatomy, anthropology, and archaeology, osteology is a detailed study of the structure of bones, skeletal elements, teeth, microbone morphology, function, disease, pathology, the process of ossification (from cartilaginous molds), the resistance and hardness of bones (biophysics), etc.

প্রশ্ন: ম্যালকোলজিতে নিচের কোনটি নিয়ে আলোচনা করা হয়?
উত্তর: শামুক-ঝিনুক
ব্যাখ্যা: Malacology is the branch of invertebrate zoology that deals with the study of the Mollusca (mollusks or molluscs), the second-largest phylum of animals in terms of described species after the arthropods

প্রশ্ন: ডিএনএ অণুর দ্বি-হেলিক্স কাঠামোর প্রবর্তক/ডিএনএ অণুর আণবিক গঠন আবিষ্কারের সাথে কে বা কারা জড়িত?
উত্তর: ওয়াটসন ও ক্রিক
ব্যাখ্যা: ডঃ ফ্রান্সিস হ্যারি কম্পটন ক্রিক একজন ইংরেজ পদার্থবিদ, আণবিক জীববিজ্ঞানী এবং স্নায়ুবিজ্ঞানী। তিনি ১৯৫৩ সালে ডিএনএ অণুর গঠনের ৪ জন আবিষ্কারকের মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য হিসাবে সর্বাধিক পরিচিতি লাভ করেন। তিনি, জেমস ডি ওয়াটসন এবং মরিস উইলকিন্স–নিউক্লিয়িক এসিডের আণবিক গঠন এবং জীবিত বস্তুতে তথ্য স্থানান্ত রের ক্ষেত্রে এদের তাৎপর্য সংক্রান্ত আবিষ্কারের জন্যে ১৯৬২ সালে শারীরতত্ত্ব অথবা ভেষজবিদ্যা শাখায় নোবেল পুরস্কারে ভূষিত হন।

প্রশ্ন: কৃত্রিম জীন আবিষ্কার করেন–
উত্তর: হরগোবিন্দ খোরানা
ব্যাখ্যা: Artificial gene synthesis is a method in synthetic biology that is used to create artificial genes in the laboratory. Currently based on solid-phase DNA synthesis, it differs from molecular cloning and polymerase chain reaction (PCR) in that the user does not have to begin with preexisting DNA sequences.

প্রশ্ন: শারীরবিদ্যার জনক কে?
উত্তর: উইলিয়াম হার্ভে
ব্যাখ্যা: শারীরবিদ্যা (Physiology) একটি বিশুদ্ধ প্রাণিবিজ্ঞানের প্রধান শাখা। এ শাখায় প্রাণিদেহের পুষ্টি, শ্বসন, ক্ষরণ, রেচন, জনন প্রভৃতি শারীরবৃত্তীয় কার্যাবলী আলোচনা করা হয়। প্রত্যেক জীবের তার নিজস্ব চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য আছে। জীবের শরীরের কার্যপ্রণালী নিয়ে শারীরবিদ্যায় আলোচনা করা হয়।

প্রশ্ন: বাদুড় কোন ফুলের পরাগায়ন ঘটায়?
উত্তর: কোনটিই নয়
ব্যাখ্যা: বাদুরের মাধ্যমে শিমুল ফুলের পরাগায়ন সংগঠিত হয়।

প্রশ্ন: কোন উদ্ভিদ স্ব-পরাগায়ন ঘটে?
উত্তর: শিম
ব্যাখ্যা: পরাগধানী হতে পরাগরেণু আপনাআপনি স্থানান্তরিত হয়ে যখন একই ফুলের বা একই গাছের অন্য কোনো ফুলের গর্ভমুণ্ডের পড়ে তখন তাকে স্ব-পরাগায়ন বা সেল্ফ পলিনেশন বলে। স্ব-পরাগায়নে দুটি ফুলের জিনোটাইপ একই রকম হয় তাই উৎপন্ন ফলে যে বীজ হয় তাতে জিনোটাইপের কোনো পরিবর্তন হয় না। ফলস্বরূপ ঐ বীজ থেকে পরবর্তীতে যে গাছ হয় তারও বৈশিষ্ট্য মাতৃ-উদ্ভিদের মত হয়। বলা যায়, এ পদ্ধতিতে প্রজাতির বিশুদ্ধতা অটুট থাকে বা রক্ষিত হয়।

প্রশ্ন: ডুমুরের পুংরেণুর সাথে স্ত্রী রেণুর সংযোগ স্থাপনের মাধ্যম–
উত্তর: কাল পিঁপড়া
ব্যাখ্যা: ডুমুরের ফুল থাকে ডুমুরের মধ্যে। পিঁপড়া উহা কেটে বের করে নিয়ে যায়।

প্রশ্ন: যে সব ফুল পতঙ্গপরাগী এবং রাতে ফোটে সেসব ফুলে কোনটি থাকে?
উত্তর: তীব্র গন্ধ এবং সাদা পাপড়ি
ব্যাখ্যা: সাদা রংয়ের কারণে সেটি সহজে দৃশ্যমান হয় এবং তীব্র গন্ধের কারণে পতঙ্গরা আকৃষ্ট হয়।

প্রশ্ন: ধানের পরাগায়ন কিভাবে হয়?
উত্তর: বাতাসের সাহায্যে
ব্যাখ্যা: যখন পরাগধানী হতে পরাগরেণু কোনো মাধ্যমের বা বাহকের দ্বারা স্থানান্তরিত হয় একই প্রজাতির অন্য একটি গাছের ফুলের গর্ভমুণ্ডের পড়ে তখন তাকে পর-পরাগায়ন বা ক্রস পলিনেশন বলে। বাহকের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো বাতাস, পোকামাকড় ইত্যাদি।

প্রশ্ন: কোন গাছের পাতা থেকে গাছ জন্মায়?
উত্তর: পাথরকুচি
ব্যাখ্যা: কোনো ধরনের অযৌন রেনু বা জনন কোষ সৃষ্টি না করে দেহের অংশ খন্ডিত হয়ে যে প্রজনন ঘটে তাকে অঙ্গজ প্রজনন বলে। এটি স্বতস্ফুর্তভাবে ঘটলে তাকে প্রাকৃতিক অঙ্গজ প্রজনন বলে। এটি স্বতস্ফুর্তভাবে ঘটলে তাকে প্রাকৃতিক অঙ্গজ প্রজনন বলে। আবার যখন কৃত্রিমভাবে অঙ্গজ প্রজনন ঘটানো হয় তখন তাকে কৃত্রিম অঙ্গজ প্রজনন বলে। অযৌন প্রজনন দেহের খণ্ডায়ন, মূল, কাণ্ড অথবা পাতার মাধ্যমে হতে পারে। কৃত্রিম অযৌন প্রজনন কলম অথবা কাটিং পদ্ধতির মাধ্যমে হয়।

পাথর কুচি

প্রশ্ন: সালোসংশ্লেষণ কোথায় ঘটে–
উত্তর: প্লাষ্টিড
ব্যাখ্যা: কোষের মধ্যে থাকে প্লাস্টিড। এবং প্লাস্টিডের মধ্যে থাকে ক্লোরোফিল। এজন্য সালোক সংশ্লেষণ ঘটে প্লাস্টিডে।

প্রশ্ন: সালোক সংশ্লেষণ প্রক্রিয়ায় নির্গত অক্সিজেনের উৎস কি?
উত্তর: পানি
ব্যাখ্যা:
* সালোকসংশ্লেষ প্রক্রিয়াতে উপজাত পদার্থরূপে যে অক্সিজেন পাওয়া যায় তার উৎস পানি ।
* সালোকসংশ্লেষের উৎপন্ন গ্লকোজ অণুর অক্সিজেনের উৎস CO2 ।

প্রশ্ন: সালোক সংশ্লেষণের অন্ধকার বিক্রিয়া কী নামে পরিচিত?
উত্তর: কেলভিন বিক্রিয়া
ব্যাখ্যা:
• সূর্যালোকের উপস্থিতিতে জলের আয়নীকরণকে বলে ফটোফসফোরাইলেশন।
• সালোকসংশ্লেষ এর অন্ধকার দশাটি প্রথম পর্যবেক্ষণ করেন ব্ল্যাকম্যান।

প্রশ্ন: শীত বা গ্রীষ্মের পূর্বে গাছের পাতা ঝরে যায় কেন?
উত্তর: প্রস্বেদন কমাতে
ব্যাখ্যা: উদ্ভিদ প্রস্বেদনের মাধ্যমে শরীর হতে অতিরিক্ত পানি বের করে দেয়। কিন্তু শীতকালে যেহেতু প্রতিবেশে পানি কম থাকে, তাই প্রস্বেদন প্রক্রিয়া বন্ধ রাখার প্রয়োজন পড়ে। পাতা ঝরিয়ে দিয়ে উদ্ভিদ শীতকালে প্রস্বেদন প্রক্রিয়া বন্ধ রাখে।

প্রশ্ন: উদ্ভিদ কোষ থেকে বাষ্পাকারে পানি বের হয়ে যাওয়ার প্রণালীকে বলে–
উত্তর: প্রস্বেদন
ব্যাখ্যা: প্রস্বেদন হচ্ছে শারীরতাত্ত্বিক প্রক্রিয়া যার মাধ্যমের উদ্ভিদের পাতা ও অন্যান্য বায়বীয় অঙ্গ হতে পানি বাষ্পাকারে বের হয়ে যায়। মূল এবং ফুলের মাধ্যমেও প্রস্বেদন হতে পারে। উদ্ভিদ তার মূল দিয়ে পানি শোষণ করে থাকে এবং পত্ররন্ধ্রের রক্ষীকোষ দুটোর-স্ফীতি ও শিথিল অবস্থা পত্ররন্ধ্র্র খোলা ও বন্ধ হওয়া নিয়ন্ত্রণ করে। পত্ররন্ধ্রের মাধ্যমে বেশিরভাগ প্রস্বেদন সম্পন্ন হয়।
পত্ররন্ধ্রের খোলা ও বন্ধ হওয়ার উপর নির্ভর করে প্রস্বেদনের হার। এছাড়া প্রস্বেদনের হার পাতার চারপাশের আবহাওয়া, আর্দ্রতা, তাপমাত্রা, বায়ু এবং সূর্যালোকের পরিমাণের উপর নির্ভর করে। উদ্ভিদ কি পরিমাণ পানি হারায় তা নির্ভর করে এর আকার এবং কি পরিমাণ পানি মূলের মাধ্যমে শোষণ করা হয় তার উপর।

প্রশ্ন: সূর্যের প্রখর উত্তাপেও গরম হয় না কোনটি?
উত্তর: গাছের পাতা
ব্যাখ্যা: গাছের পাতায় সবচেয়ে বেশি প্রস্বেধন সংগঠিত হয় (পত্ররন্ধ্র দিয়ে অবিরাম পানি বের হতে থাকে), এজন্য গাছের পাতা গরম হয় না।

প্রশ্ন: উদ্ভিদের খাদ্য তৈরি হয় কোথায়?
উত্তর: কচিকাণ্ডে, বীজপত্রে ও পাতায়
ব্যাখ্যা: যেখানে ক্লোরোফিল আছে, সেখানে খাদ্য তৈরি হয়। ক্লোরোফিল না থাকলে খাদ্য তৈরি হয় না। উদ্ভিদের সবুল অংশে ক্লোরোফিল থাকে।

প্রশ্ন: কোনটি প্রাথমিক খাদ্য উৎপাদক?
উত্তর: সবুজ উদ্ভিদ
ব্যাখ্যা: পাতায় ক্লোরোফিল থাকে বলে একমাত্র সবুজ উদ্ভিদ খাদ্য তৈরি করতে পারে। প্রাণী খাদ্য তৈরি করতে পারে না। ছত্রাক জাতীয় অসবুজ উদ্ভিদেরাও খাদ্য তৈরি করতে পারে না। সবুজ উদ্ভিদ খাদ্য তৈরি করে এবং সেই খাদ্যই বিভিন্নভাবে জীবজগতকে বাঁচিয়ে রাখে।

প্রশ্ন: শীতকালে প্রস্বেদন কম হয়, কারণ–
উত্তর: পাতা ঝড়ে যায়
ব্যাখ্যা: শীতকালে মূল দ্বারা পানি শোষণ কম হয়, ফলে উদ্ভিদের শরীরে পানির আধিক্য থাকে না। এজন্য শীতকালে উদ্ভিদ পত্ররন্ধ্র বন্ধ রেখে এবং পাতা ঝরিয়ে দিয়ে প্রস্বেদন ঠেকায়, যাতে শরীর হতে পানি বেরিয়ে যেতে না পারে।

প্রশ্ন: খাদ্য তৈরির জন্য উদ্ভিদ বায়ু থেকে গ্রহণ করে–
উত্তর: কার্বন ডাই অক্সাইড
ব্যাখ্যা: সালোকসংশ্লেষ (photosynthesis) এমন একটি জৈবনিক প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে উদ্ভিদ সূর্যের আলোর শক্তি ব্যবহার করে বাতাসে লভ্য কার্বন ডাই অক্সাইড এবং ভূমি থেকে আহৃত পানি থেকে শর্করা তৈরী করে এবং এ প্রক্রিয়ায় অক্সিজেন নির্গত হয়। প্রধানত গাছের পাতা এবং অন্যান্য সবুজ অংশে সালোকসংশ্লেষ সংঘটিত হয়। উদ্ভিদ ছাড়া কিছু জীবাণু এবং কিছু প্রোটিস্টের মধ্যেও এই প্রক্রিয়া পরিদৃষ্ট হয়।

প্রশ্ন: সালোকসংশ্লেষণ প্রক্রিয়ায় তৈরি মূল পদার্থটি কি?
উত্তর: শর্করা
ব্যাখ্যা: সালোকসংশ্লেষ সম্বন্ধীয় কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়:
১. উদ্ভিদ দেহে সালোকসংশ্লেষ এ উৎপন্ন গ্লুকোজ সঞ্চিত থাকে শ্বেতসার রূপে
২. সালোকসংশ্লেষে প্রয়োজনীয় পানি উদ্ভিদ শোষণ করে মূলরোম দ্বারা
৩. সালোক সংশ্লেষে সক্ষম প্রাণী ইউগ্লিনা, ক্রাইস্যামিবা
৪. সালোকসংশ্লেষে সক্ষম ব্যাকটেরিয়া– রোডোস্পাইরিলাম, রোডোসিউডোমোনাস
৫. সালোকসংশ্লেষকারী অঙ্গ– পাতা, স্থান- মেসোফিল কলা, অঙ্গাণু – ক্লোরোপ্লাস্ট, একক কোয়াণ্টাজোম
৭. সালোকসংশ্লেষে অক্ষম উদ্ভিদ– স্বর্ণলতা,  সকলপ্রকার ছত্রাক
৯. জীব জগৎ এর প্রাথমিক খাদ্যের উৎস– সালোকসংশ্লেষ প্রক্রিয়া ।
১০. যে প্রক্রিয়ায় জীবদেহের শুষ্ক ওজন বৃদ্ধি পায় তাকে বলে উপচিতি বিপাক। যেমন: সালোকসংশ্লেষ।
১১. সালোক সংশ্লেষের প্রধান উপাদান– CO2, ক্লোরোফিল, সূর্যালোক, জল ।
১২. এক অণু গ্লুকোজ উৎপন্নের জন্য CO2 প্রয়োজন ৬ অণু ।
১৩. ক্লোরোফিল এর রাসায়নিক উপাদান কার্বন, হাইড্রোজেন, অক্সিজেন, নাইট্রোজেন,  ম্যাগনেসিয়াম ।
১৪. গাছের সবুজ অংশ হলুদ হলে হয় ক্লোরোসিস (লোহা এবং ম্যাগনেসিয়ামের অভাবে)
১৫. ১ অণু গ্লুকোজ উৎপন্নের জন্য পানির অণু প্রয়োজন হয় ১২ অণু ।

প্রশ্ন: ক্লেরোফিল ছাড়া সম্পন্ন হয় না–
উত্তর: সালোকসংশ্লেষণ
ব্যাখ্যা: কেবলমাত্র ক্লেরোফিল নামক রঞ্জক পদার্থের উপস্থিতিতেই সালোকসংশ্লেষণ সংগঠিত হতে পারে।

প্রশ্ন: সালোকসংশ্লেষণে কার্বন-ডাই-অক্সাইড পানির সাথে বিক্রিয়া করে উৎপন্ন করে–
উত্তর: গ্লুকোজ ও অক্সিজেন
ব্যাখ্যা: সালোকসংশ্লেষণ বিক্রিয়াটি এখানে দেওয়া হল:

6CO2 + 12H2O + Light Energy _____> C6H12O6 + 6O2 + 6H2O.

প্রশ্ন: সবুজ উদ্ভিদ কোথায় খাদ্য তৈরি করে?
উত্তর: পাতায়
ব্যাখ্যা: পাতায় এবং কচি কাণ্ডে ক্লোরোফিল থাকে। এজন্য প্রধানত পাতায় এবং কিছু ক্ষেত্রে কচি কাণ্ডে সালোকসংশ্লেষণ সংগঠিত হয়।

প্রশ্ন: এন্টিবায়োটিকের কাজ–
উত্তর: জীবাণু ধংস করা
ব্যাখ্যা: Antibiotics or antibacterials are a type of antimicrobial used in the treatment and prevention of bacterial infection.

প্রশ্ন: এন্টিবায়োটিক ওষুধ তৈরি হয়/পেনিসিলিন ওষুধ তৈরি হয়–
উত্তর: ছত্রাক দিয়ে
ব্যাখ্যা: পেনিসিলিন এক প্রকার অ্যান্টিবায়োটিক। এটি পেনিসিলিয়াম (Penicillium) নামক ছত্রাক তৈরি করে। ব্যাক্টেরিয়ার কোষপ্রাচীরের পেপটিডোগ্লাইকেন সংশ্লেষণ বন্ধ করে পেনিসিলিন কাজ করে থাকে। পেনিসিলিন এন্টিবায়োটিক ঐতিহাসিক দিক দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ। কারণ তারা ছিল প্রথম ওষুধ, যা অনেক গুরুতর যেমন সিফিলিস হিসাবে রোগ, বিভিন্ন ধরনের সংক্রমণের বিরুদ্ধে কার্যকর ছিল। পেনিসিলিন এখনও ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হচ্ছে, যদিও ব্যাকটেরিয়ার অনেক ধরনের এখন প্রতিরোধ গড়ে তুলেছে এর বিরুদ্ধে। সব পেনিসিলিন হয় বিটা-ল্যাক্টাম অ্যান্টিবায়োটিক এবং ব্যাকটেরিয়ার বিরুদ্ধে ব্যবহার করা হয়, সাধারণত গ্রাম-ব্যাকটেরিয়ার সৃষ্ট ইনফেকশনের চিকিৎসায় এর কার্যকারিতা ভালো।

প্রশ্ন: গাছের খাদ্য তালিকায় কোনগুলো থাকে?
উত্তর: N, P, K, S ও Zn

প্রশ্ন: সবচেয়ে বেশি পরিমাণ সালোকসংশ্লেষণ হয়–
উত্তর: লাল আলোতে

প্রশ্ন: নার্ভাস সিস্টেমের স্ট্র্যাকচারাল এবং ফাংশনাল ইউনিটকে কি বলে?
উত্তর: নিউরন

প্রশ্ন: মাইটোকন্ড্রিয়ার কত ভাগ প্রোটিন?
উত্তর: ৭৩%

মাইটোকন্ড্রিয়া

প্রশ্ন: ঘন পাতাবিশিষ্ট বৃক্ষের নিচে রাতে ঘুমানো স্বাস্থ্যসম্মত নয় কেন?
উত্তর: অধিক পরিমাণে CO2 নির্গত হয়

প্রশ্ন: IUCN এর কাজ বিশ্বব্যাপী–
উত্তর: প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণ করা

প্রশ্ন: জীবের বংশগতির বৈশিষ্ট্য কোনটির উপর নির্ভর করে?
উত্তর: ক্রোমোজোম

প্রশ্ন: ধানের ফুলে পরাগ সংযোগ ঘটে–
উত্তর: বাতাসের সাহায্যে পরাগ ঝড়ে পড়ে

প্রশ্ন: জলজ উদ্ভিদ সহজে ভাসতে পারে কারণ–
উত্তর: এদের কাণ্ডে অনেক বায়ুকুঠুরি থাকে

প্রশ্ন: মোটামুটিভাবে সম্পূর্ণ বা আদর্শ খাদ্য বলা যায়–
উত্তর: দুধকে

প্রশ্ন: কচু খেলে গলা চুলকায়, কারণ কচুতে থাকে–
উত্তর: ক্যালসিয়াম অক্সালেট

প্রশ্ন: কোন কোষে একাধিক নিউক্লিয়াস থাকে?
উত্তর: জনন কোষ

প্রশ্ন: মাইটোকন্ড্রিয়া অনুপস্থিত–
উত্তর: ব্যাক্টোরিয়ায়

প্রশ্ন: কোন খনিজ লবণের অভাবে গাছের পাতা ও ফুল ঝরে পড়ে?
উত্তর: ফসফরাস

প্রশ্ন: যেসব ভাইরাস ব্যাকটেরিয়াকে আক্রমণ করে তাদেরকে বলা হয়–
উত্তর: ব্যাকটেরিওফাজ

প্রশ্ন: কোষের মস্তিষ্ক বলা হয়–
উত্তর: নিউক্লিয়াসকে

প্রশ্ন: রক্তের লোহিত কণিকা তৈরি হয়–
উত্তর: যকৃতে

প্রশ্ন: ক্লোরফিলের মধ্যে কোন ধাতব আয়নটি আছে?
উত্তর: ম্যাঙ্গানিজ

প্রশ্ন: নিচের কোনটি মৌল নয়, আবার যৌগও নয়?
উত্তর: শর্করা

প্রশ্ন: ধানের বাদামী রোগ হয়–
উত্তর: ছত্রাক দ্বারা

প্রশ্ন: অক্সিজেনের অনুপস্থিতিতে যে শ্বসন হয় তাকে বলা হয়–
উত্তর: অবাত শ্বসন

প্রশ্ন: সালোকসংশ্লেষণ সংঘটিত হয় যেখানে–
উত্তর: ক্লোরোফিল আছে

প্রশ্ন: কোন উদ্ভিদের কাণ্ড রূপান্তরিত হয়ে পাতার কাজ করে?
উত্তর: ফণিমনসা

প্রশ্ন: কোন রোগ প্রতিরোধের জন্য বি সি জি টিকা ব্যবহার করা হয়?
উত্তর: যক্ষ্মা

প্রশ্ন: সুষম খাদ্যে শর্করা, আমিষ ও চর্বি জাতীয় খাদ্যের অনুপাত কিরূপ?
উত্তর: ৪ ঃ ১ ঃ ১

প্রশ্ন: কোন কোষে নিউক্লিয়াস থাকে না?
উত্তর: লিভার কোষ

প্রশ্ন: ইস্ট কি?
উত্তর: একটি ছত্রাক

প্রশ্ন: কোলাজেন কি?
উত্তর: একটি কার্বোহাইড্রেট

প্রশ্ন: জীবের বংশগতির বৈশিষ্ট্য বহন করে–
উত্তর: ক্রোমোসোম

প্রশ্ন: পেনিসিলিন ঔষুধ তৈরি করা হয়–
উত্তর: ছত্রাক থেকে

প্রশ্ন: নিচের কোন রঞ্জন পদার্থের জন্য ফুল বিচিত্র বর্ণের হয়?
উত্তর: ক্রোমোপ্লাস্ট

প্রশ্ন: একটি আদর্শ ফলে পাওয়া যায়–
উত্তর: বহিঃত্বক, মধ্যত্বক ও অন্তঃত্বক

প্রশ্ন: সালোকসংশ্লেষণ সবচেয়ে বেশি হয়–
উত্তর: সবুজ আলোতে

প্রশ্ন: সবচেয়ে বড় ঘাস–
উত্তর: বাঁশ

প্রশ্ন: কি কারণে সবুজ টমেটো পাকলে লাল হয়?
উত্তর: ক্লোরোপ্লাস্ট রূপান্তরিত হয়ে ক্রোমোপ্লাষ্টে পরিণত হয়

প্রশ্ন: হাইপোগ্লাইসোমিয়া কিসের অভাবে হয়?
উত্তর: রক্তের গ্লুকোজ

প্রশ্ন: ডিপথেরিয়া শরীরের কোন অংশে হয়?
উত্তর: গলা

প্রশ্ন: কোন রাসায়নিক পদার্থ ক্রেমোজোমের ভিতর থাকে না?
উত্তর: লিপিড

প্রশ্ন: উদ্ভিদের মুখ্য পুষ্টি উপাদান কয়টি?
উত্তর: ৯টি

প্রশ্ন: একাধিক কোষ বিভিন্ন কাজের জন্য মিলিতভাবে কি তৈরি করে?
উত্তর: কলা

প্রশ্ন: সবুজ টমেটো পাকার পর লাল হয় কেন?
উত্তর: ক্যারোটিন ও জ্যান্থোফিল থাকার কারণে

প্রশ্ন: DNA অণুতে অনুপস্থিত–
উত্তর: ইউরাসিল

প্রশ্ন: উদ্ভিদের প্রয়োজনীয় মৌলের সংখ্যা–
উত্তর: ১৭টি

প্রশ্ন: সংকটকালীন বা আপদকালীন হরমোন কোনটি?
উত্তর: অ্যাডরিনালিন

প্রশ্ন: মিউকর একটি–
উত্তর: ছত্রাক

প্রশ্ন: পাট থেকে তৈরী ‘জুটন’ কে আবিষ্কার করেন?
উত্তর: ড. মোহাম্মদ সিদ্দিকুল্লাহ

প্রশ্ন: একটি পূর্ণাঙ্গ স্নায়ুকোষকে বলা হয়–
উত্তর: নিউরন

নিউরন

প্রশ্ন: পানিতে কিসমিস ডুবিয়ে রাখলে কিছুক্ষণের মধ্যেই ফুলে উঠে, এটা হয়–
উত্তর: অভিস্রবণ প্রক্রিয়ায়

প্রশ্ন: ম্যালিক এসিড কোনটিতে পাওয়া যায়?
উত্তর: টমেটোতে

প্রশ্ন: আর্সেনিকের পারমাণবিক সংখ্যা–
উত্তর: ৩৩


বিসিএস দৈনন্দিন বিজ্ঞান, প্রাণী বিজ্ঞান-২

JoVEN JoBS

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *