কোর্ট বলেছে স্ত্রীর যোনীতে আবার যেন আঠা লাগিয়ে বন্ধ করা না হয়

দোহা ট্রিবিউনের সংবাদটি থেকে জানা যাচ্ছে কাতারের জনৈক ‘ভদ্রলোক’ ভেবেছিল যেহেতু সে ব্যবসার কাজে কিছু দিনের জন্য বাইরে যাবে তাই এই সময়ে স্ত্রীর যোনী গ্লু দিয়ে বন্ধ করে রেখে গেলে সংগত হবে।

তবে ৩৩ বছর বয়সী উক্ত উম্মতের স্ত্রী কোর্টে গিয়ে অভিযোগ করলে কোর্ট তাকে তলব করে কৈফিয়ত নেয়। লোকটি জানায় যে তার স্ত্রী কয়েকদিন আগে ফেসবুকে ১২ বছর বয়সী তার কাজিনের একটি লেখায় লাইক দিয়েছে, তাছাড়া ছবিতে তার গোড়ালী দেখা গেছে, যেটি ইসলাম সম্মত নয়।

লোকটির ভাষ্য শোনার পর বিচারক মোহাম্মদ বিন সাদেম বলেছেন “যদিও লোকটি স্ত্রীর যোনী গ্লু দিয়ে আটকে ঠিক করেনি, তদুপরি বলতে হবে লোকটির উদ্দেশ্য মহৎ ছিল।”

বিচারক আরো বলেছেন, লোকটির অভিযোগ আমলে নিয়ে স্ত্রীর বিচার হবে কিনা সেটি বিবেচন্য বিষয় হিসেবে থাকল। সে বিবেচনায় লোকটির স্ত্রীকে একশো চাবুক মারা হতে পারে। লোকটিকে ৪০ রিয়েল জরিমানা করে আদালত। এবং সে আর কখনো স্ত্রীর যোনী গ্লু দিয়ে আটকে দেবে না মর্মে তার কােছ থেকে মুচলেকা নেয়।

সূত্র: দোহা ট্রিবিউন

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *